বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:৩১ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার...

লক্ষ্মীপুরে ১৩ কাউন্সিলর প্রার্থী মনোনয়ন পত্র বাতিল

এম জেড মাহমুদ / ৩৩ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ৫ নভেম্বর, ২০২১

লক্ষ্মীপুর পৌরসভার নির্বাচনের যাচাই-বাচাইয়ে মেয়র পদে আওয়ামীলীগের মনোনীত মোজাম্মেল হায়দার মাসুম ভূঁইয়াসহ ৬ প্রার্থীর প্রার্থীতা বৈধ হয়েছে। তবে কাউন্সিলর পদে ঋণখেলাপী ও হলফনামায় তথ্য গোপনের দায়ে ১৩ জন প্রার্থীর মনোনায়নপত্র বাতিল করা হয়। এনিয়ে পৌরসভার ১৫টি ওয়ার্ড ৮১ জন পুরুষ কাউন্সিলর পদে প্রার্থীতা বৈধ হয়েছে। এছাড়াও সংরক্ষিত নারী আসনে ২০ জন প্রার্থী সবারই প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করে জেলা নির্বাচন কমিশন। বুধবার (৪ নভেম্বর) দিনব্যাপী যাচাই-বাচাই শেষে সন্ধ্যায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা স্বপন কুমার ভৌমিক।

নির্বাচন কর্মকর্তা বলেন, বাতিলকৃত কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে ৫ জনের বিরুদ্ধে ব্যাংকের ঋণ খেলাপীর অভিযোগ রয়েছে। বাকী ৯ জন কাউন্সিলর প্রার্থী হলফনামায় মামলা সংক্রান্ত জটিলতার তথ্য গোপন করার কারণে যাচাই-বাচাই বোর্ডে তাদের প্রার্থীতা বাতিল করা হয়। তবে বাতিলকৃত প্রার্থীগণ চাইলে যাচাই-বাচাইয়ে বাতিল হওয়ার তিন দিনের মধ্যে বাতিলের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আপিল বিভাগে আপিল আবেদন করতে পারবেন।

ঋণ খেলাপীর দায়ে বাতিলকৃত প্রার্থীরা হলেন, লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মো. ইকবাল হোসাইন হামেল (মা হার্ডওয়ার), তার বিরুদ্ধে সোনালী ব্যাংক লক্ষ্মীপুর শাখায় ঋণখেলাপীর অভিযোগ রয়েছে। পৌর ৪নং ওয়ার্ডের মো. মামুনুর রশিদ (মামুন ইলেক্ট্রিক এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স) এনসিসি ব্যাংক লক্ষ্মীপুর শাখায় ঋণখেলাপী, পৌর ৫নং ওয়ার্ডের রাশেদুল ইসলাম (এসএস ট্রেডার্স) ঋণখেলাপী রয়েছে উত্তরা ব্যাংক লক্ষ্মীপুর শাখায়, ৬নং ওয়ার্ডের মাকসুদুর রহমান পাটোয়ারী (প্রাইড শাঁড়ি মহল) ব্রাক ব্যাংক ঢাকার গুলশান শাখায় ঋণখেলাপী রয়েছে। এছাড়াও ৭নং ওয়ার্ডের তোফাজ্জল হোসেন আজাদের (আজাদ টেডার্স) বিরুদ্ধেও এনসিসি ব্যাংক লক্ষ্মীপুর শাখায় ঋণ খেলাপীর অভিযোগ রয়েছে।
এছাড়াও হলফনামায় তথ্য গোপনের দায়ের প্রার্থীতা বাতিল হয়েছে যাদের, পৌর ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মো. মাসুদ আলম ও আবুল কালাম আজাদ, ৫নং ওয়ার্ডের মোহাম্মদ আমির হোসেন সুমন ও এস ইউ এম ফারুক, ৬নং ওয়ার্ডের সাদ্দাম হোসেন, ৭নং ওয়ার্ডের আলমগীর হোসেন রতন, ১০নং ওয়ার্ডের মাইন উদ্দিন, ১১নং ওয়ার্ডের মুহাম্মদ জহিরুল আলম, ১৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আবু সালেহ মোহাম্মদ খালেদ অপু।

এদিকে মেয়র পদে অন্য বাকী প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী একেএম বদরুল আলম মাহমুদ শাম্মি, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জাকির আল মামুন ভূঁইয়া, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের জহির উদ্দিন, জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন (এনবিএন) আবদুর রহিম, স্বতন্ত্র প্রার্থী সাহেলা শারমিন। মনোনায়ন যাচাই-বাচাই কালে প্রার্থী ও প্রার্থীদের সমর্থকরা উপস্থিত ছিলেন।
জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, আগামি ২৮ নভেম্বর লক্ষ্মীপুর পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রথমবারের মত ইভিএম এর মাধ্যমে (ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন) ভোটগ্রহণ করা হবে। ১১ নভেম্বর প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। ১২ নভেম্বর প্রার্থীদেরকে প্রতিক বরাদ্দ দেওয়া হবে।


এই বিভাগের আরো খবর