শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:০২ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার...

অনন্ত জলিলের নির্মাণাধীন ভবনে এডিসের লার্ভা, প্রকৌশলীর ৬ মাসের জেল

এম জেড মাহমুদ / ১৫৮ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ১ জুন, ২০২১

অনন্ত জলিলের নির্মাণাধীন ভবনে এডিসের লার্ভা, প্রকৌশলীর ৬ মাসের জেল

নির্মাণাধীন ভবনের গ্রাউন্ড ফ্লোরে জমে থাকা পানিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যাওয়ায় নায়ক অনন্ত জলিলের নির্মাণাধীন ভবনের নির্বাহী প্রকৌশলীকে ৬ মাসের জেল দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ হোসেন। মোহাম্মদপুরের ইকবাল রোডের ৫/২ এর প্লট নম্বর-৭এ ভবনের মালিক চিত্রনায়ক এম এ জলিল (অনন্ত জলিল)। একই সঙ্গে ডোমিনো বিল্ডার্সের একটি ভবনকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

মঙ্গলবার (১ জুন) সকালে এডিস মশা, ডেঙ্গু এবং চিকুনগুনিয়া বিস্তার রোধে পরিচালিত এক চিরুনি অভিযানের শুরুতেই এই দণ্ড ও জরিমানা করা হয়।

অভিযানের শুরুতে ডোমিনো বিল্ডার্স এবং অনন্ত জলিলের নির্মাণাধীন পৃথক দুটি ভবন পরিদর্শনে যান মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। এসময় অনন্ত জলিলের ভবনের নিচে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়।

পরিদর্শন শেষে ডিএনসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ হোসেন ডোমিনো বিল্ডার্সকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া এমএ জলিলেরর বাসার কাজে নিয়োজিত নির্বাহী প্রকৌশলীকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ হোসেন বলেন, এখানে আমাদের কাউন্সিলর তিনবার এসেছেন, সর্তক করেছেন। আমাদের স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরাও এসেছেন। তাদের বার বার বলে দিয়েছেন, সর্তক করছেন। কিন্তু তারা কোনোভাবেই সর্তক হননি। কোনও পরামর্শ শোনেননি। আজ এসে দেখেছি অবস্থার কোনও পরিবর্তন হয়নি। তাই সরকারের সংক্রমণ আইনের ২৭৯ ধারায় ৬ মাসের জেলের বিধান আছে সেই বিধান মোতাবেক এখানে যিনি দায়িত্বে আছেন প্রাথমিক পর্যায়ে তাকে ৬ মসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের সিদ্ধান্ত দিয়েছি।

পরে মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা চাই না কাউকে জেল-জরিমানা করতে। কিন্তু বার বার বলার পরেও কেউ শুনছেন না। অনেকে ক্ষমতা দেখান, কেউ রাজনীতির ক্ষমতা, কেউ টাকার ক্ষমতা দেখান। আজ আমাদের ম্যাজিস্ট্রেট বাধ্য হয়ে জরিমানা ও জেল দিয়েছেন। আমার আহ্বান আপনারা নিজের আঙিনা পরিষ্কার রাখুন। তিন দিনে এক দিন জমা পানি ফেলে দিন। এখানে তিন দিনের জমা পানি না ৩০ দিনের জমা পানি ছিল। তাই জেল-জরিমানা করা হয়েছে।

পরে মেয়র ডোমিনো বিল্ডার্স ও জলিলের নির্মাণাধীন ভবনে রেড অক্সাইড দিয়ে মার্ক করে দেন এবং লিফলেট টাঙিয়ে দেন ‘এই বাসায় এডিসের লার্ভা আছে’।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও সংসদ সদস্য ডা. আ ফ ম রুহুল হক, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জোবায়দুর রহমান, চিত্রনায়ক ফেরদৌস, অভিনেত্রী তানভীন সুইটি, স্থানীয় কাউন্সিলর সৈয়দ হাসান নূর ইসলাম প্রমুখ।


এই বিভাগের আরো খবর