মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার...

শিগগিরই উন্মোচন হচ্ছে রামগঞ্জ-হাজিগঞ্জ সড়ক

বিশেষ প্রতিনিধি / ১৭৮ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ১১ মে, ২০২১

শিগগিরই উন্মোচন হচ্ছে রামগঞ্জ-হাজিগঞ্জ সড়ক

 
লক্ষীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার রামগঞ্জ বাজার থেকে হাজিগঞ্জ পর্যন্ত ৯ কিলোমিটার
সড়কের উন্মোচন অচিরেই হতে যাচ্ছে। চলতি মাসেই কাজটি বুঝিয়ে দিতে
পারবে বলে জানিয়েছে ঠিকাদির প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ। এর আগে চলতি বছরের
আগষ্ট মাসে ৫ কোটি ৫১ লাখ ৬০ হাজার টাকা ব্যয়ে শুরু হয় সড়কের মেরামত
কাজ। কাজটি পায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মোহাম্মদ ইউনুছ এন্ড ব্রাদার্স। ৬
মাসের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করার কথা থাকলেও এর আগেই তা সম্পন্ন হবে বলে
জানান তারা। তবে সড়ক বিভাগের বিভিন্ন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে
কাজের মান নিয়ে অভিযোগ থাকলেও রামগঞ্জ বাজার থেকে হাজিগঞ্জ পর্যন্ত ৯
কিলোমিটার রাস্তার মেরামতের কাজ নিয়ে সন্তুষ প্রকাশ করছেন স্থানীয়
জনপ্রতিনিধি সহ উপকার ভোগীরা। তাই সড়কটি উন্মোচনের মাধ্যম স্বপ্ন
পূরণ হতে যাচ্ছে তাদের। স্থানীয় সংসদ সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন খানের
হস্তক্ষেপে এবং সড়ক বিভাগের সঠিক তদারকির ফলে কাজের গুনগত মান ভালো
হয়েছে বলে দাবী স্থানীয়দের। নিয়মিত সময় সড়ক মেরামত কাজে পরিদর্শনে
যান সহকারী প্রকৌশলী মোহাম্মদ কাউছার আহম্মেদ, উপ-বিভাগী প্রকৌশলী
মোস্তফা চৌধুরী, নির্বাহী প্রকৌশলী সুব্রত দত্ত ও তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী
আব্দুর রহিম। একাধিকবার সাইড পরিদর্শন করে কাজের তদারকি করেন। এবং দরপত্র
অনুযায়ীই কাজ হচ্ছে বলে সন্তুষ প্রকাশ করেন তারা। এসময় ঠিকাদারি
প্রতিষ্ঠানকে কাজের গুনগত মান ঠিক রেখে বাকী কাজ সম্পন্ন করার পরামর্শ ও
নির্দেশনা দেন সড়ক কর্তৃপক্ষ।
জানাগেছে, দ্বীর্ঘদিন যাবত সড়কটি বেহাল অবস্থায় পড়ে ছিল। খানাখন্দে [া
সড়কটি দিয়ে যাতায়াত করত লাখ লাখ মানুষ। স্কুল-কলেজ মাদরাসাসহ একাধিক
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ওই সড়কেই চলাচল করতো। অনেকাংশে ধোয়া
আচ্ছেন্ন থাকতো সড়কটি। বিশেষ করে রামগঞ্জ সরকারী কলেজ, সরকারী বালিকা
উচ্চবিদ্যালয়সহ বেশ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ স্থানীয়দের
দৈনন্দিন চলাচলের একমাত্র সড়ক ছিল এটি। হাজিগঞ্জ বালু মহলের গাড়ী চলাচলের
কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত সড়কটি। 
ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি জুয়েল খন্দকার জানান, দ্বীর্ঘদিন
অবহেলিত সড়কটি অচিরেই উন্মোচন হচ্ছে। স্থানীয় সাংসদের সহযোগিতায়
এবং সড়ক বিভাগের তদারকির মাধ্যমে সঠিকভাবে কাজ করার চেষ্টা করছি। যদিও
কাজের ধরা বেষ্ট টাইপ ওয়ান (পাথর বালু মিকছার করে কাজ করা উন্নতিকরণ ধরা
ছিল ৫শ মিটার কিন্তু কাজের মান ঠিখ রাখার জন্য তা ১৫ শ থেকে ১৭ শ মিটার
বেষ্ট টাইপ ওয়ান দ্বারা মেরামত করেছি। এবং যেভাবে রাস্তার প্রস্ত ধরা আছে
সেভাবেই করা হচ্ছে।
স্থানীয় সংসদ সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন খান জানান, দ্বীর্ঘদিনের
মানুষের দাবী সড়কটি সংস্কার করা। আমি নির্বাচিত হওয়ার পর বেশ কয়েকটি
উন্নয়নমূলক কাজ করেছি। তারমধ্যে রামগঞ্জ বাজার থেকে হাজিগঞ্জ পর্যন্ত ৯
কিলোমিটার সড়ক। এই সড়ক দিয়ে চলাচলে মানুষকে খুব ভোগান্তি পোহাতে
হতো। এখন তা আর হবেনা। তিনি বলেন আমি যতটুকু শুনেছি কাজটি প্রায়
শেষের পথে। তবে কাজের গুনগত মান ভালো হয়েছে এবং স্থানীয়রাও সন্তুষ প্রকাশ
করেছে। একই সাথে রামগঞ্জে বেশ কয়টি উন্নয় কাজন চলমান বলে জানান
তিনি।


এই বিভাগের আরো খবর