শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার...

রায়পুরে আদর্শ গ্রামবাসিদের উচ্ছেদের পাঁয়তারা প্রতিবাদে মানববন্ধন

রায়পুর প্রতিনিধি / ৩১৬ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: সোমবার, ৫ অক্টোবর, ২০২০

  • রায়পুরে আদর্শ গ্রামবাসিদের উচ্ছেদের পাঁয়তারা প্রতিবাদে মানববন্ধনলক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ৩০ বছর ধরে বসবাস করা আদর্শ গ্রামের ৭৫ টি পারিবারের দুই শতাধিক অসহায় ভূমিহীন উচ্ছেদ আতংকে রয়েছেন। এর প্রতিবাদে কয়েকজন ভুমিদস্যুসহ ইউনিয়ন তহশিলদারের বিচারের দাবিতে মানব বন্ধন করেছে গ্রামবাসীরা। উপজেলার উত্তর চরবংশী ইউপির আদর্শ স্কুল মাঠে ইউপি সদস্যসহ দুই শতাধিক আদর্শগ্রামের বাসিন্দারা ঘন্টা ব্যাপি মানববন্ধন করেছেন। রোববার বিকালে এর প্রতিবাদে ইউপি ভুমি অফিস ঘেরাও করা হয়েছে বলেও জানান আদর্শগ্রামবাসীরা।

    মানববন্ধনে দরিদ্র ভুমিহীনরা মৌখিক ও লিখিত বক্তব্যে জানান, ১৯৮৮ ও ৮৯ সালে এরশাদ সরকারের সময় ৭৫টি দরিদ্র অসহায় পরিবারকে গুচ্ছগ্রামে ১ টি ঘর, ৮ শতাংশ জমি ও চরের এক একর জমি দান করেন। পরবর্তিতে আ’লীগ সরকার গুচ্ছগ্রাম নাম বাদ দিয়ে আদর্শগ্রাম নাম করন করেন। গত বছর ভুমিহীনদের তাদের নামে জমি রেকর্ডের নামে পরিবার প্রতি সাত’শ করে টাকা নেয় চরবংশী ইউপি তহশীলদার। কিন্তু তিনি নথি রেকর্ড না করে উল্টো তহসিলদার ভুমিদস্যু রাশেদ খলিফা,মাতবর সরকার,হাসিম মাতাব্বর,খিদির রাড়ীর সাথে যোগসাজসে মনগড়া প্রতিবেদন প্রদান করেন। এর প্রতিবাদ এবং প্রভাবশালী মহলের অব্যাহত হুমকী ও ষড়যন্ত্রের কথা তুলে ধরা হয় মানববন্ধনে।

    আদর্শগ্রামবাসি প্রশাসনের কাছে দাবি করেছেন, যাতে মামলার নামে প্রভাবশালী মহলটি একতরফা রায় বাগিয়ে নিতে না পারেন। ত্রিশ বছর ধরে বসবাস করে আসা তাদের ভিটেমাটিসহ জমিতে কেউ যেন হস্তক্ষেপ না করে। তারা যেন নিরাপদে থাকতে পারে সেখানে। মৌসুমি ফসল করে যেন সংসার চালাতে পারেন।

    মানববন্ধনে ইউপি সদস্য স্বপন কাজী, আদর্শগ্রামের সভাপতি মাইনুদ্দিন রাড়ি, সম্পাদক সিদ্দিক রাড়ি, গ্রামবাসী স্বপন ঢালী, নুরু গাজী, কামাল দেওয়ান, সাবেক ইউপি সদস্য আবুল কাশেম সহ দুইশতাধিক গুচ্ছগ্রামবাসী উপস্থিত ছিলেন।

    আদর্শ গ্রামের বাসিন্দা হিরু বেগম, মিনু বেগম, রিনা রেগম ও রহিমা বেগম বলেন, বাপ দাদার আমল থাইকা এইহানে থাহি। এই হানের জমি চাষ কইরা পোলাপান গরে খাওন দেই। অহন এই জমি প্রভাবশালীরা মামলার নামে প্রশাসনকে বড় অংকের টেয়া দিয়ে আঙ্গরে উডাই দিতো চায়। বালব্চ্চা নিয়া অহন আমরা কোথাই যামু ?

    চরবংশী ইউনিয়ন সহকারী ভুমি কর্মকর্তা আলী আহম্মদ বলেন, গুচ্ছগ্রামবাসীদের স্বার্থরক্ষায় কাজ করে যাচ্ছি। তাদের কেউ যেন উচ্ছেদ বা ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখা হয়েছে। টাকা নেওয়ার বিষয়টি সঠিক নয়।

    উপজেলা সহকারি কমিশনার ( ভূমি) আক্তার জাহান সাথি জানান, বিষয়টি আমার জানা নাই। ইউপি তহশিলদারসহ সংশ্লিষ্টদের সাথে যোগাযোগ করে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।


এই বিভাগের আরো খবর