শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:২০ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার...

লক্ষ্মীপুরে শিশু ধর্ষণ: মামলা তুলতে হুমকির অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি / ৩৫১ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

লক্ষ্মীপুর জেলার ভবানীগঞ্জে ছয় বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের মামলায় গ্রেপ্তার আসামির পরিবার এখন মামলা তুলে নেওয়ার জন্য ‘হুমকি দিচ্ছে’ বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

হুমকি পাওয়ার কথা জানিয়ে গত ১১ সেপ্টেম্বর লক্ষ্মীপুর সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন মেয়েটির বাবা। তবে গ্রেপ্তার আসামি বাদশা মিয়ার ছেলের দাবি, হুমকির অভিযোগ সঠিক নয়।

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা ১৭ নং ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের ওই মেয়েটি স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। তার বাবার অভিযোগ, স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ী বাদশা মিয়া গত ৩ অগাস্ট ঘরে ডেকে নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করেন।

সেদিন বিকালে মেয়েটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়ার পর তার বাবা থানায় গিয়ে মামলা করেন। সেদিন রাতেই পুলিশ ৬৫ বছর বয়সী বাদশাকে গ্রেপ্তার করে।

মেয়েটির বাবা বলেন, “বাদশা মিয়া গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকেই নানানভাবে তার বাড়ির লোকজন আমারে হেনস্তা করা শুরু করছে। তারা বলে আমি যেন মামলা তুইলা নেই। কয়দিন আগে আমার স্ত্রী শুনছে, আমার মেয়েকে মাইরা ফেলানোর কথাও কইতেছে কয়েকজন, যাতে আদালতে সাক্ষ্য দিতে না পারে।”

তদন্ত কর্মকর্তা এস আই মোতাহের হোসেন বলেন, মামলা হওয়ার পর ভিকটিম ও আসামির ডিএনএ পরীক্ষার জন্য নমুনা ঢাকায় পাঠানো হয়েছিল।

“সেই রিপোর্ট পেলে আমরা নিশ্চিত হতে পারব, বাদশা মিয়াই দোষী কি না। মামলাটি শিগগিরই আদালতে যাবে। তবে যেহেতু শিশু ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে, উচ্চ আদালত ছাড়া বাদশা মিয়ার জামিন পাওয়া সহজ হবে না।”

হুমকির অভিযোগ নিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে এস আই মোতাহের বলেন, “আমরা বাদীকে যথাসম্ভব সাহায্য করেছি। তিনি চাচ্ছেন আসামির পরিবারের বিরুদ্ধেও যেন এখন পদক্ষেপ নেওয়া হয়।”

এ বিষয়ে আসামি বাদশা মিয়ার ছেলে মো. আল আমিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি।
তিনি বলেন, “এ রকম কোনো অভিযোগ করা হইলে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমরা কোনো প্রকার হুমকি দেই নাই। আমরা যেহেতু আসামি পক্ষ, এইটা নিয়া আর কোনো কথা বলি নাই। আমার বাবা যেহেতু আটক আছে, অতএব আমাদের এইটা মানতে হইব।”


এই বিভাগের আরো খবর