শিরোনাম:
স্বামী যদি সহবাসে অক্ষম হয়, তাহলে স্ত্রীর কী করা উচিৎ? বি’ব্র’তক’র সা’দাস্রা’ব প্র’তিরো’ধে ক’রণী’য়। প্র’ত্যে’ক মে’য়ে’র জেনে রা’খা প্র’য়োজ’ন লক্ষ্মীপুরে আ. লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি পদ নিয়ে টানাটানি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে বিয়ে, যা বললেন পরীমনি ভায়াগ্রা নয়, পেঁয়াজ দিয়েই বাড়ান ৩গুণ সেক্স! এবং সহবাসে সঙ্গীকে দিন পরিপূর্ণ তৃপ্তি! শা’রী’রিক মি’ল’নে চ’র’ম আন’ন্দ পে’তে ট্রা’ই ক’রু’ন এই ভ’ঙ্গি’মা সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা ও’ষুধ-ক’নডম ছাড়াই কিভাবে জ’ন্ম নি’য়ন্ত্রণ করা সম্ভব ! বিবা’হিত দম্পতিরা জেনে রাখু’ন গাছের পাতা বিক্রি করে বছরে আয় ১২ লাখ টাকা জেগে উঠেছে সমুদ্রগর্ভের ‘ঘুমন্ত দানব’
সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ১২:৫৮ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার...

লক্ষ্মীপুরে ফাতেমা হত্যার রহস্য উদঘাটন

রায়পুর প্রতিনিধি / ৩৮৫ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: বুধবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

লক্ষ্মীপুরে ফাতেমা হত্যার রহস্য উদঘাটন

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ফাতেমা আক্তার (১৯) নামের এক তরুনীকে মাথায় আঘাত ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এঘটনায় সোমবার (৩১ আগষ্ট) সকালে একই বাড়ীর যুবক রায়হানকে (৩৫) গ্রেপ্তার করে রিমান্ডের জন্য-আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। নির্মম এঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কেরোয়া ইউপির লুধুয়া গ্রামের ভুঁইয়া বাড়ীতে। উল্লেখ্য- গত ১৯ জুলাই বিকালে নীজ ঘর থেকে ঝুলন্তবস্তায় ফাতেমার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় ওইদিনই নিহতের বড় বোন সারাবান তহুরা বাদী হয়ে একই বাড়ীর রায়হানসহ তার মা, ভাবি ও ছোট ভাইকে আসামি করে মামলা করেছিলেন।

নিহত ফাতেমা আক্তার একই গ্রামের মৃত. সিরাজুল্লাহ ভুঁইয়ার মেয়ে এবং আটক রায়হান একই এলাকার শরিফুল ইসলামের বখাটে ছেলে।

পুলিশ জানান, কেরোয়া ইউপির লুধুয়া ভূঁইয়া বাড়ির ফাতেমা আক্তারকে মাথায় আঘাত ও গলা টিপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বাড়ীর যে কোন ব্যাক্তি। হত্যা মামলাটি ভিন্ন খাতে প্রভাহিত করতে ফাতেমার বসতঘরের উত্তর পশ্চিম পাশের কর্নারে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস লাগিয়ে ঝুলিয়ে রাখে। এঘটনায় নিহতের বড় বোন সারাবান তহুরা বাদী হয়ে রায়পুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছিলেন। একমাস দশ দবন পর মেডিকেল রিপোর্ট আমাদের হাতে আসে। এতে ফাতেমার মাথায় আঘাত ও তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে উল্লেখ্য করা হয়েছে। পরে এমামলায় একই বাড়ীর রায়হান নামের এক যুবককে আটক করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

রায়পুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আবদুল জলিল বলেন, মেডিকেল রিপোটে হত্যা আসায় একই বাড়ীর রায়হান নামের এক যুবককে আটক করা হয়েছে। তাকে রিমান্ডের জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে। তখনই বলা যাবে কারা ও কেন ফাতেমাকে হত্যা করেছে এব্য রহস্য উদঘাটন হবে।


এই বিভাগের আরো খবর