বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:৩৬ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার...

কমলনগর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যেগে বাঁধ দিয়ে নদী ভাঙ্গন ঠেকানোর চেষ্টা

বিশেষ প্রতিনিধি / ২৭০ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: সোমবার, ১০ মে, ২০২১

কমলনগর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যেগে বাঁধ দিয়ে নদী ভাঙ্গন

মেঘনার ভাঙন প্রতিরোধে বাঁশ, গাছ, তেরপাল ও গাছের ডালপালা দিয়ে ‘জংলা বাঁধ’ নির্মাণ করছেন লক্ষ্মীপুর কমলনগরের চরকালকিনি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল্যা। এর আগে, গেল বছর এ জংলা বাঁধ দিয়ে নাছিরগঞ্জবাজার কিছুটা পেলেও বৃহৎ অংশ নদীগর্ভে বিলিন হয়ে যায়। এদিকে রামগতি-কমলনগরে অব্যাহত মেঘনার ভাঙনে হাজার-হাজার ঘর-বাড়ী, মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল, সরকারী বিভিন্ন স্থাপনা মেঘনার গর্ভে তলিয়ে যায়। মেঘনা অব্যাহত ভাঙ্গনে নাছিরগঞ্জ বাজারস্থ চরকালকিনি ইউনিয়ন পরিষদ নদী গর্ভে বিলিন হওয়ার পথে।

দীর্ঘ দিন থেকে লক্ষ্মীপুরের রামগতি ও কমলনগর উপজেলায় মেঘনার ভয়াবহ ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। কিন্তু ভাঙন প্রতিরোধে কর্তৃপক্ষ কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তাই ইউনিয়ন পরিষদ, নাছিরগঞ্জবাজার সহ সরকারী-বেসরকারী বিভিন্ন স্থাপনা ও বসত বাড়ী রক্ষার্থে এ উদ্যেগ নেন চরকালকিনি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান।

রবিবার (১০ মে) দুপুরে সরেজমিন ঘুরে মেঘনা পাড়ে বাঁধ নির্মাণের এ কর্মযজ্ঞ দেখা যায়।

সদর উপজেলা থেকে রামগতি পর্যন্ত ৩৭ কিলোমিটারের মধ্যে ৫ কিলোমিটার এলাকায় নদীর তীর রক্ষা বাঁধ রয়েছে। কিন্তু অরক্ষিত ৩২ কিলোমিটার এলাকা ধীরে ধীরে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। নদীশাসনের কাজে বিভিন্নজন প্রতিশ্রুতি দিলেও বাস্তবে তা হচ্ছে না।

স্থানীয়রা জানান, মেঘনা অব্যাহত ভাঙনে আমাদের নাছিরগঞ্জ বাজারের দোকান ঘর, বসতভিটা ও ফসলী জমিন নদীতে ভেঙ্গে গেছে। বর্তমানেও এ ভাঙ্গত অব্যাহত আছে। এবার ইউনিয়ন পরিষদও ভেঙ্গে যেতে পারে। ভাঙ্গন ঠেকাতে চেয়ারম্যান বাঁধ নির্মানের কাজ শুরু করেছে। তার এ উদ্যেগ প্রশংসনীয়। হয়ত এর ফলে আমাদের বসতভিটা, দোকানপাঠ ও ফসলী জমিও রক্ষা পেতে পারে। তারা বলেন, গেল বছর চেয়ারম্যান ও স্থানীয়দের স্বেচ্ছাশ্রমে নাছিরগঞ্জ বাজার রক্ষায় জংলা বাঁধ দিয়ে ঠেকানোর চেষ্টা করেছে।

চর কালকিনি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাষ্টার সাইফুল্যা জানান, বসতভিটা হারিয়ে যুগে-যুগে কয়েক লাখ মানুষ নিঃস্ব হয়েছেন। ভাঙন প্রতিরোধে বহু আন্দোলন সংগ্রাম হয়েছে, নানা প্রতিশ্রুতিও আসছে কিন্তু কাজের কাজ হয়নি। তাই বাঁধ দিয়ে কালকিনি ইউনিয়ন পরিষদ, নাছিরগঞ্জ বাজারসহ নিজেদের বসতভিটা ও গ্রাম রক্ষার চেষ্টা করছি।


এই বিভাগের আরো খবর