শিরোনাম:
লক্ষ্মীপুর আইনজীবী সমিতির সভাপতি শাহাদাত, সম্পাদক সবুজ খোলার সিদ্ধান্ত শিগগিরই: গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে চায় সরকার: ভিপি নুর পটুয়াখালীতে সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যা ও হারুন খাঁনের উপরে সন্ত্রাসী হামলায় প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন রায়পুরে মেয়র প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট জনপ্রিয়তার শীর্ষে  কমলনগরে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত কাল সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ দিবস পালন যেভাবে চন্দ্রগঞ্জে লোহার গেইটের চাপায় প্রাণ গেল শিশু শ্রমিক সাইমুনের বশিকপুর ইউনিয়নে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি কাউন্সেলিং অধিবেশন অনুষ্ঠিত জন্ম নিবন্ধনের নতুন শর্ত : সন্তানদের স্কুলে ভর্তি করতে ভোগান্তিতে অভিভাবকরা
বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার...

হাইমচর চরভৈরবীতে ঘাট নাই ,যাত্রীদের সীমাহীন দুর্ভোগ।

চাঁদপুর প্রতিনিধি / ১৩ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

হাইমচর চরভৈরবীতে ঘাট নাই ,যাত্রীদের সীমাহীন দুর্ভোগ।

হায়দারগঞ্জ- হাইমচর লঞ্চ ঘাটে যাত্রীদের দুর্ভোগ সীমাহীন। ঢাকা থেকে হায়দরগঞ্জ-হাইমচরে আসা লঞ্চগুলো ভিড়ার জন্য নেই পল্টুনের ব্যবস্থা। এতে ঝুঁকি নিয়েই কাঠের সিঁড়ি লাগিয়ে যাত্রী উঠানামাসহ মালামাল লোড-আনলোড করা হয়।
জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাত্রীরা লঞ্চে উঠতে গিয়ে প্রতিনিয়তই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন।

এছাড়াও উত্তর আলগী ইউনিয়নের কাটাখালী বাজার, তেলির মোড়, হাইমচর বাজার ও চরভৈরবী ইউনিয়নের মাছ ঘাট সংলগ্ন নদীর পাড়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে নোঙর করে লঞ্চগুলো। নদীতে বাঁঁধ দেয়ার সময় নয়ারহাট ও কাটাখালী লঞ্চঘাট স্থানান্তরিত করা হলেও পরবর্তীতে ঘাটটি আর প্রতিস্থাপন করেনি কতৃপক্ষ। স্পটগুলোতে দীর্ঘদিন যাবত ইজারা দিয়ে রাজস্ব আদায় করা হলেও যাত্রীদের উঠানামার জন্য কোন পন্টুনের ব্যবস্থা করা হয়নি।

লঞ্চযাত্রীদের দীর্ঘদিন থেকে চলে আসা এ দুর্ভোগের কথা বিআইডব্লিউটিএ’কে কয়েক দফা অবহিত করা হলেও তারা পন্টুনের ব্যবস্থা করেনি বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

এক্ষেত্রে বিআইডব্লিউটিএ’র কর্মকর্তাদের উদাসীনতা ও দায়িত্ব অবহেলার কথা উল্ল্যেখ করে তারা জানান, ‘হাইমচরে রেকর্ড পরিমান উন্নয়ন করা হলেও আমাদের এই দূর্ভোগের চিত্র নিত্যদিন। উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতিদিন হাজারো মানুষ কর্ম ও ব্যবসায়ী কাজে ঢাকায় আসা যাওয়া করেন। পল্টুন না থাকায় লঞ্চগুলো নদীর পাড়ে এসে নোঙ্গর ফেলার কারণে পাড় ভেঙে চলছে।

অতিদ্রুত নৌপথে যাত্রী সেবা নিশ্চিত করতে ঘাটগুলোতে পল্টুন স্থাপন করার জোর দাবি জানান উপজেলাবাসী।

বিআইডব্লিউটিএ’র চাঁদপুর নদী বন্দরের উপ-পরিচালক এ.কে.এম কায়সারুল ইসলাম বলেন, ‘স্পটগুলো নিয়ে আমি এখনো লিখিত অথবা মৌখিক কোন অভিযোগ কিংবা চাহিদাপত্র পাইনি। নদীভাঙনের কারণে আমরা সব জায়গায় ঘাট করার সুযোগ পাইনি। তবে স্পটগুলো পরিদর্শন করে জরুরী ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


এই বিভাগের আরো খবর