শিরোনাম:
লক্ষ্মীপুর আইনজীবী সমিতির সভাপতি শাহাদাত, সম্পাদক সবুজ খোলার সিদ্ধান্ত শিগগিরই: গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে চায় সরকার: ভিপি নুর পটুয়াখালীতে সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যা ও হারুন খাঁনের উপরে সন্ত্রাসী হামলায় প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন রায়পুরে মেয়র প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট জনপ্রিয়তার শীর্ষে  কমলনগরে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত কাল সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ দিবস পালন যেভাবে চন্দ্রগঞ্জে লোহার গেইটের চাপায় প্রাণ গেল শিশু শ্রমিক সাইমুনের বশিকপুর ইউনিয়নে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি কাউন্সেলিং অধিবেশন অনুষ্ঠিত জন্ম নিবন্ধনের নতুন শর্ত : সন্তানদের স্কুলে ভর্তি করতে ভোগান্তিতে অভিভাবকরা
বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৮:৫৯ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার...

আল জাজিরা বিতর্ক: প্রতিবেদন নিয়ে চার জনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আবেদন

চলমান বাংলা ডেক্স / ৩৯ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

আল জাজিরা বিতর্ক: প্রতিবেদন নিয়ে চার জনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আবেদন

কাতার ভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আল জাজিরায় প্রচারিত ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস মেন’ শিরোনামে প্রতিবেদনের সাথে সংশ্লিষ্ট চার জনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে মামলার আবেদন করা হয়েছে ঢাকার একটি আদালতে।
মামলার আবেদনে অভিযুক্তরা হলেন, ব্রিটিশ সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যান, সুইডেন প্রবাসী সাংবাদিক তাসনিম খলিল, হাঙ্গেরি প্রবাসী বাংলাদেশি জুলকারনাইন সামি এবং আল জাজিরার ডিরেক্টর জেনারেল ও প্রধান সম্পাদক মোস্তেফা স্যোয়াগ।
ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে বুধবার মামলার আবেদনটি করেছেন বঙ্গবন্ধু ফাউণ্ডেশন নামের একটি সংগঠনের নির্বাহী সভাপতি আব্দুল মালেক ওরফে মশিউর মালেক।
তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশের সেনা বাহিনীর প্রধান এবং তার ভাইদের কর্মকাণ্ড নিয়ে প্রতিবেদন আল জাজিরায় প্রচার করে রাষ্ট্র এবং সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। আবেদনে তিনি এই অভিযোগ এনেছেন।
তিনি বলেছেন, তার মামলা গ্রহণ করা না করা বা তদন্তের প্রশ্নে তারা এখন আদালতের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছেন। বৃহস্পতিবার আদালত কোন সিদ্ধান্ত দিতে পারে, এমনটা তিনি আশা করছেন।
তবে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে মামলা করার ক্ষেত্রে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন বা অনুমতির প্রয়োজন হয়।
আইনজীবীরা জানিয়েছেন, মামলা গ্রহণ করা না করার প্রশ্নে সিদ্ধান্ত দেয়ার আগে আদালত যদি আবেদনটি তদন্তের জন্য পাঠায়, তখন তদন্তে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগের প্রমাণ মিললে সরকারের অনুমতি নেয়ার প্রয়োজন হয়।
সেই পর্যায়ে তদন্তকারি কর্মকর্তা অনুমতির জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করতে পারেন।
তবে অনুমতি দেয়ার এখতিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বলে তারা উল্লেখ করেছেন।


এই বিভাগের আরো খবর