রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৫:৪৬ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি:
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার...

 লাল নীল আলোয় পরিপূর্ণভাবে সেজেছে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ

বিশেষ প্রতিনিধি / ৩৮৮ পড়া হয়েছে:
প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২০

লাল নীল আলোয় পরিপূর্ণভাবে সেজেছে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ

বিজয়ের মাসে সেজেছে রাঙা পরীর মত সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ। ঝলমলে আর লাল-নীল ঝিকিমিকি বাতির আলোয় পরিপূর্ণ ভাবে সেজেছে , শুধুই বিজয়ের সাজে।

ঝলমলে লাল-নীল বাতির আলোয় পরিপূর্ণ। এ যেন শুধুই বিজয়ের স্বাদ। ২ লাখ মা বোনদের সম্ভ্রম ও ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে স্বাধীনতার পরশ পেয়েছে বাঙালি জাতি স্বাধীন বাংলাদেশ। সেই স্বাধীনতার প্রাপ্তি যেন আজ ফুটে উঠেছে এই রঙিন সাজে।শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য জাতীয় স্মৃতিসৌধ প্রস্তুত করার জন্য বেশ কিছু দিন আগে থেকেই কাজ শুরু করেছে গণপূর্ত বিভাগ। ধোঁয়া-মোছা, রঙ তুলির কাজ ও আলোকসজ্জায় সাজিয়ে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে। নেওয়া হয়েছে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা।

এ ব্যাপারে গণপূর্ত বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী শামীম সরদার জানান, বিজয় দিবস উপলক্ষে জাতীয় স্মৃতিসৌধে দেশের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা, দেশি-বিদেশি কূটনৈতিক, রাজনৈতিক ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা শ্রদ্ধা জানাবেন। সেই লক্ষে স্মৃতিসৌধের শেষ পর্যায়ের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। করোনাকালীন সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এখানে সবাই শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন বলে আশা প্রকাশ করছি।

এ ব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধা সফের আলী বলেন, ১৯৭১ সালে আমরা যে লক্ষ্যে যুদ্ধ করেছিলাম আজ তার স্বাদ পরিপূর্ণভাবে পাচ্ছি। স্মৃতিসৌধের দিকে তাকালেই গর্বে বুক ভরে যায়। আজ যেন জীবনের সকল চাওয়া পূর্ণ হয়েছে। আমাদের সহযোদ্ধা যারা শহীদ হয়েছেন, চোখের সামনে মাটিতে লুটিয়ে পড়া দেখে বুক ভেঙে যেতো। আজ তাদের যথাযোগ্য সম্মান দেখে তৃপ্ততায় হারিয়ে যাই অনাবিল সুখে।

সচেতন নাগরিক কসিটির (সনাক) আশুলিয়া থানা সভাপতি লায়ন মোহাম্মদ ইমাম বলেন, করোনার কারণে গত ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবসে শ্রদ্ধা জানাতে না পেরে কষ্ট পেয়েছিলাম। এবার তাই আগেই প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। যখন সবার শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য স্মৃতিসৌধ উন্মুক্ত করা হবে তখনই শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করবো।
মহান বিজয় দিবসকে ঘিরে জাতীয় স্মৃতিসৌধসহ গোটা সাভারে রয়েছে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা বলয়। বিজয় দিবস উপলক্ষে সাদা পোশাকের পাশাপাশি পোশাক পরিহিত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর থাকবে। গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় বসানো হয়েছে ওয়াচ টাওয়ারসহ সিসি ক্যামেরা। টেকনিক্যাল কারনে নিরাপত্তা ব্যবস্থার বিস্তারিত গোপন রাখা হয়েছে। এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার। যেন আজ ফুটে উঠেছে এই রঙিন সাজে


এই বিভাগের আরো খবর